Breaking News

বিশ্বের সবচেয়ে ৫টি মুসলিম শক্তিশালি দেশ। যাদের সামরিক শক্তি দেখে অনেক দেশ ভয়ে থাকে।


বিশ্বের সবচেয়ে ৫টি মুসলিম শক্তিশালি দেশ।
যাদের সামরিক শক্তি দেখে অনেক দেশ  ভয়ে থাকে।


বিশ্বের সবচেয়ে ৫টি মুসলিম শক্তিশালি দেশ।যাদের সামরিক শক্তি দেখে অনেক দেশ ভয়ে থাকে।


বিশ্বের সবচেয়ে ৫টি মুসলিম শক্তিশালি দেশ। পৃথিবীর বেশিরভাগ মুসলমান দেশ যথেষ্ট ধনী এবং খনিজ সম্পদে পরিপূর্ণ হয়ে আছে। কিন্তু পৃথিবীতে এমন অনেক মুসলিম দেশ আছে যাদের চ্যালেঞ্জ করা বিশ্বের অধিকাংশ দেশগুলোর জন্য কঠিন হতে পারে।. উল্লেখ্য. সামরিক শক্তি মূল্যায়নের ক্ষেত্রে সামরিক শক্তিতে সবচেয়ে বেশি  শক্তিশালি  মুসলিম দেশ বলে মনে করা হয়, যুদ্ধ সরঞ্জাম হিসাবে দেওয়া হয়নি।

বিশ্বের সবচেয়ে ৫টি মুসলিম শক্তিশালি দেশ।

যাদের সামরিক শক্তি দেখে অনেক দেশ  ভয়ে থাকে।

বিশ্বের শক্তিশালী মুসলিম দেশের তালিকাঃ

১। তুরস্ক

বিশ্বের সামরিক শক্তিধর দেশের তালিকা  জিএফবি অনুযায়ী সামরিক শক্তিতে বিশ্বে তুরস্কের অবস্থান নবম এবং মুসলিম বিশ্বে প্রথম তুরস্ক। বিশ্বের সবচেয়ে বড় বিকশিত মুসলিম দেশগুলোর মধ্যে একটি। এদেশের সৈন্যদের সবচেয়ে সমৃদ্ধি ও আধুনিকরণ সৈন্য বলে ধরা হয়। ন্যাটো  সংগঠনে তুরস্কের স্থান আমেরিকার পড়ে।দ্বিতীয় নম্বরে রয়েছে তুরস্ক। তুর্কি সেনাবাহিনীতে মোট সৈন্য সংখ্যা সাত লক্ষ 35000 জন যার মধ্যে 350000 স্বয়ংক্রিয় সৈন্য। এছাড়া 3200 টি ট্যাংক 9500 টি সাঁজোয়া যান 120 টি শেল্ফ প্রফেল্ড  আর্টিলারি 12723 এবং 350 টি রকেট প্রজেক্টরস রয়েছে। বিমানবাহিনীতে সর্বমোট 1067 বিমানের মধ্যে 207 টি যুদ্ধবিমান 207 টি অ্যাটাক বিমান 87 টি পরিবহন বিমান এবং 298 প্রশিক্ষণ বিমান রয়েছে। এছাড়া 492 হেলিকপ্টার এরমধ্যে রয়েছে 94 টি অ্যাটাক হেলিকপ্টার। তুর্কি নৌবাহিনীর মধ্যে মোট 194 টি নৌ সম্পদের মধ্যে 16 টি ফ্রিগেট ,দশটি কর্বাট্ , 11 টি মাইন এয়ার ফেয়ার ক্রাফট রয়েছে।

২। মিশর

কোন দেশ সবচেয়ে শক্তিশালী ? জি এফ অনুযায়ী সামরিক শক্তিতে  মিশরের অবস্থান 12 এবং মুসলিম বিশ্বের দ্বিতীয়।এই বাহিনী কে আফ্রিকা মহাদেশের সবচেয়ে বৃহৎ বাহিনীর হিসেবে বিবেচনা করা হয়। মিশরের সশস্ত্র বাহিনীর 1820 সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। মূলত রাশিয়া আমেরিকা ও ইউরোপের বিভিন্ন দেশ থেকে সমর অস্ত্র কিনে ও নিজেই কিছু অস্ত্র তৈরি করে। এছাড়াও সামরিক বাহিনীর বিভিন্ন যুদ্ধে অংশগ্রহণ করার অভিজ্ঞতা আছে। মিশর সেনাবাহিনীতে মোট সৈন্য সংখ্যা 9 লাখ 20 হাজার জন। যার মধ্যে 440000 জন সক্রিয় সৈন্য এবং 480000 জন রিজার্ভ সৈন্য। এছাড়াও 2160 ট্যাংক 5735 টি সাঁজোয়া যান 1000 টি self-propelled আর্টিলারি 2189  আর্টিলারি এবং 1100 টি রকেট প্রজেক্টরস রয়েছে। সেনাবাহিনীতে 1092 বিমানের মধ্যে 211 টি যুদ্ধবিমান 341 অ্যাটাক বিমান 59 টি পরিবহন বিমান এবং 380 টি প্রশিক্ষণ বিমান রয়েছে।

৩। ইরান

পৃথিবীর সবচেয়ে শক্তিশালী সেনাবাহিনী -জিএফ অনুযায়ী বিশ্ব রেংকিং এ সামরিক শক্তিতে ইরানের অবস্থান 14 এবং মুসলিম বিশ্বে তৃতীয়। পৃথিবীর মধ্যবর্তী দেশ গুলোর মধ্যে ইরানকে সবচেয়ে শক্তিশালী দেশ বলে মনে করা হয়। এই দেশ নিজেদের ডিফেন্স সরঞ্জাম নিজেরাই তৈরি করে। ইরানে 19 বছর বয়সে সকল পুরুষ ও মহিলাদের 18 মাস বাধ্যতামূলক প্রশিক্ষণ নিতে হয়। ইরানের সেনাবাহিনীতে মোট সদস্য সংখ্যা 8 লাখ 73 হাজার জন। যার মধ্যে 5 লাখ 30 হাজার জন সক্রিয় সৈন্য এবং 350000 জন রিজার্ভ সৈন্য। এছাড়া 1634 টি ট্যাংক, 234567 সাঁজোয়া যান , 570 টি self-propelled আর্টিলারি,2128 আর্টিলারি এবং 1900 টি রকেট প্রজেক্টরস রয়েছে। সেনাবাহিনীতে সর্বমোট 509 টি বিমানের মধ্যে 142 টি যুদ্ধবিমান 165 বিমান 79 টি পরিবহন বিমান এবং 108 টি প্রশিক্ষণ বিমান রয়েছে। নৌবাহিনীর মোট 398 টি নৌ সম্পদের মধ্যে 6 টি ফ্রিগ্রেট তিনটি কর্বাট 34 টি সাবমেরিন 88 পেট্রোল ক্রাফট এবং তিনটি মাইল এয়ার ফেয়ার ক্রাফট রয়েছে।

৪।পাকিস্তান

সামরিক শক্তির তালিকা ২০১৯। জিএফ অনুযায়ী  বিশ্বে সামরিক শক্তিতে পাকিস্তানের অবস্থান 15 তে এবং মুসলিম বিশ্বের চতুর্থ। যদি মিলিটারির দিক থেকে দেখা যায় তাহলে পাকিস্তানি সৈন্য  শক্তিশালী দেশের মধ্যে 1 টি। পাকিস্তানের স্পাই এজেন্ট আইএস আই কে পৃথিবীর সবচেয়ে সক্রিয় এজেন্সি বলা হয়। কিন্তু এদেশের অর্থব্যবস্থা পৃথিবীর বেশির ভাগ মুসলিম দেশগুলোর তুলনায় যথেষ্ট খারাপ এবং পিছিয়ে পড়া দেশ বলে মনে করা হয়। এছাড়াও পাকিস্তান পৃথিবীর প্রথম এমন একটি মুসলিম দেশ যার কাছে পারমাণবিক অস্ত্র আছে। পাকিস্তান সেনাবাহিনীতে সৈন্য সংখ্যা 12 লক্ষ 4000 জন। যার মধ্যে 6 লাখ 54 হাজার সক্রিয় এবং 55000  সৈন্য রিজার্ভ । এছাড়া 2200 টি ট্যাংক 3665 সাঁজোয়া যান 429 self-propelled আর্টিলারি  1226 টি আর্টিলারি এবং 150 টি রকেট প্রজেক্টর রয়েছে। বিমানবাহিনীতে সর্বমোট 13 হাজার 42 টি বিমান আছে। 384 টি যুদ্ধবিমান বিমান 438 টি এটাক বিমান একান্নটি পরিবহন বিমান রয়েছে। স্থানের হেলিকপ্টারের সংখ্যা 322 টি।

5.ইন্দোনেশিয়া

বিশ্বের সামরিক শক্তিধর দেশের তালিকা জিএফ অনুযায়ী সামরিক শক্তিতে বিশ্বে  ইন্দোনেশিয়ার অবস্থান 16 টে এবং মুসলিম বিশ্বে পঞ্চম। ইন্দোনেশিয়া এমন একটি দেশ যাদেরকে নিজেদের ব্যবসা-বাণিজ্যের সুবিধার জন্য বিশ্বের কোন দেশে ও অখুশি করতে চায় না। ইন্দোনেশিয়া কে বিশ্বের সবচেয়ে বেশি মুসলিম জনসংখ্যার দেশ বলা হয়। ইন্দোনেশিয়ার অর্থব্যবস্থা পাকিস্তানের অর্থব্যবস্থা থেকে প্রায় চার গুণ ভালো। এছাড়া ইন্দোনেশিয়ার প্রতিটি ব্যক্তির ইনকাম ভারতের থেকে প্রায় দ্বিগুণ এবং পাকিস্তানের থেকে আড়াই গুণ বেশি। ইন্দোনেশিয়ায় সেনাবাহিনীর সৈন্য সংখ্যা 8 লাখ জন। যার মধ্যে চার লাখ জন সক্রিয় সৈন্য এবং 4 লাক জন রিজার্ভ সৈন্য। এছাড়াও 315 টি ট্যাংক তেরোশো টি সাঁজোয়া যান 141 টি সেলফ প্রপেলড আর্টিল্লেরি এবং 35 টি রকেট প্রজেক্টর রয়েছে। বিমানবাহিনীতে সর্বমোট 451 টি বিমানের মধ্যে 41 টি যুদ্ধ বিমান 65 টি অ্যাটাক বিমান 62 টি পরিবহন বিমান এবং 104 টি প্রশিক্ষণ বিমান রয়েছে। এছাড়াও মোট 192 টি হেলিকপ্টার মধ্যে আটটি অ্যাটাক হেলিকপ্টার আছে। ইন্দোনেশিয়া নৌবাহিনী 221 নৌ সম্পদের মধ্যে আটটি সিক্রেট 28 টি কর্বাট পাঁচটি সাবমেরিন 139 পেট্রোল ক্রাফট এবং এগারোটি এয়ারক্রাফট রয়েছে।

Written By-Tanjil

Tag-সামরিক শক্তিতে পাকিস্তান,সৌদি সামরিক শক্তি,মুসলিম দেশের অর্থনীতি,সামরিক যুদ্ধ,বিশ্বের শক্তিশালি দেশ কোনটি,পৃথিবীতে মুসলিম দেশ কয়টি?